ঢাকা , বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পেলেন স্কুল শিক্ষক

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৮:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২৩
  • 105

এবার ওয়ালটন ব্র্যান্ডের রেফ্রিজারেটর কিনে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার স্কুল শিক্ষক নাসির উদ্দীন। দেশব্যাপী চলমান ওয়ালটনের ‘ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-১৯’ এর আওতায় ওই ক্যাশ ভাউচার পান তিনি। প্রাপ্ত ক্যাশ ভাউচার দিয়ে তিনি ওয়ালটন ব্র্যান্ডের আরেকটি ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন, রাইস কুকার, ফ্যান, ব্লেন্ডারসহ ঘরভর্তি ইলেকট্রনিক্স পণ্য কেনেন।

বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর, ২০২৩) রাঙ্গুনিয়ার রোয়াজারহাট পৌর এলাকায় ওয়ালটনের পরিবেশক শোরুম ‘শাহ আমানত ইলেকট্রনিক্স’-এ আনুষ্ঠানিকভাবে নাসির উদ্দিনের হাতে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার তুলে দেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক আমিন খান, ওয়ালটন ডিস্ট্রিবিউটর নেটওয়ার্কের হেড অব সেলস ফিরোজ আলম এবং ওয়ালটন ফ্রিজের চিফ বিজনেস অফিসার (সিবিও) তোফায়েল আহমেদ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন—উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বদিউল হাই লিটন চৌধুরী, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম চৌধুরী, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ নাসির, ওয়ালটন ফ্রিজের প্রোডাক্ট ম্যানেজার শহিদুল ইসলাম রেজা, শাহ আমানত ইলেকট্রনিক্সের স্বত্বাধিকারী লোকমান তালুকদার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, অনলাইনে গ্রাহকদের দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিত করতে ডিজিটাল পদ্ধতিতে কাস্টমার ডাটাবেজ তৈরি করছে ওয়ালটন। সেজন্য সারা দেশে চালাচ্ছে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। এখন চলছে সিজন-১৯। এর আওতায় দেশের যেকোনো ওয়ালটন প্লাজা, পরিবেশক শোরুম বা অনলাইন সেলস প্ল্যাটফর্ম ই-প্লাজা থেকে ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ২০০ শতাংশ পর্যন্ত ক্যাশ ভাউচারসহ কোটি কোটি টাকার ক্যাশ ভাউচার পাচ্ছেন ক্রেতারা। ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন বেশ কয়েকজন ক্রেতা। এই সুবিধা ৩১ ডিসেম্বর, ২০২৩ তারিখ পর্যন্ত পাওয়া যাবে।

জানা গেছে, রাঙ্গুনিয়া আদর্শ বহুমুখী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে ২৩ বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন নাসির উদ্দিন। চলতি মাসের ৪ তারিখে শাহ আমানত ইলেকট্রনিক্স থেকে একটি ওয়ালটন ফ্রিজ কেনেন তিনি। ফ্রিজটি কেনার পর তার নাম, মোবাইল নাম্বার ও ক্রয়কৃত ফ্রিজের মডেল নাম্বার ডিজিটাল পদ্ধতিতে রেজিস্ট্রেশন করা হয়। এর কিছুক্ষণ পরেই ওয়ালটন থেকে তার মোবাইলে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার একটি এসএমএস আসে।

ক্যাশ ভাউচার হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় উচ্ছ্বসিত ওই স্কুল শিক্ষক বলেন, আগে থেকেই ওয়ালটনের ফ্রিজ ব্যবহার করছি। এখন সংসার বড় হয়েছে। তাই, ওয়ালটনের শোরুমে গিয়ে বড় দেখে নতুন আরেকটি ফ্রিজ কিনি। কেনার পরে আমার মোবাইলে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার ম্যাসেজ আসে। ওই ক্যাশ ভাউচার দিয়ে অনেকগুলো ইলেকট্রনিক্স পণ্য কিনতে পারার পাশাপাশি চিত্রনায়ক আমিন খানের কাছ থেকে ক্যাশ ভাউচার নিতে পেরে আমি অনেক আনন্দিত। দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনে আমি দেশের অর্থনীতিতে কিছুটা হলেও অবদান রাখছি, এটা ভেবেও ভালো লাগছে।

চিত্রনায়ক আমিন খান বলেন, ইতোমধ্যে ওয়ালটনের পণ্য সারা দেশের মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে গেছে। মানুষের কাছে আলাদা গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে ওয়ালটন পণ্য। ওয়ালটন গ্রাহকদের শুধু আন্তর্জাতিক মানের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও ফিচারের পণ্যই তুলে দিচ্ছে না, সর্বোচ্চ বিক্রয়োত্তর সুবিধা প্রদানেও বদ্ধপরিকর। আজকের অনুষ্ঠান প্রমাণ করে, ক্রেতাকে দেওয়া কথা রাখে ওয়ালটন।

এ সময় দেশে উৎপাদিত ওয়ালটন পণ্য কিনে দেশের অর্থনীতিকে সচল রাখতে অনুরোধ জানান তিনি।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ওয়ালটন ফ্রিজে গ্রাহকরা পাচ্ছেন ১ বছরের রিপ্লেসমেন্টসহ কম্প্রেসরে ১২ বছর পর্যন্ত গ্যারান্টি ও ৫ বছরের ফ্রি বিক্রয়োত্তর সুবিধা। এছাড়া, আইএসও সনদপ্রাপ্ত ওয়ালটন সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় দেশব্যাপী বিস্তৃত ৮২টি সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা পাচ্ছেন গ্রাহকরা।

ট্যাগস

ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পেলেন স্কুল শিক্ষক

আপডেট সময় ০৮:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ ডিসেম্বর ২০২৩

এবার ওয়ালটন ব্র্যান্ডের রেফ্রিজারেটর কিনে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার স্কুল শিক্ষক নাসির উদ্দীন। দেশব্যাপী চলমান ওয়ালটনের ‘ডিজিটাল ক্যাম্পেইন সিজন-১৯’ এর আওতায় ওই ক্যাশ ভাউচার পান তিনি। প্রাপ্ত ক্যাশ ভাউচার দিয়ে তিনি ওয়ালটন ব্র্যান্ডের আরেকটি ফ্রিজ, ওয়াশিং মেশিন, রাইস কুকার, ফ্যান, ব্লেন্ডারসহ ঘরভর্তি ইলেকট্রনিক্স পণ্য কেনেন।

বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর, ২০২৩) রাঙ্গুনিয়ার রোয়াজারহাট পৌর এলাকায় ওয়ালটনের পরিবেশক শোরুম ‘শাহ আমানত ইলেকট্রনিক্স’-এ আনুষ্ঠানিকভাবে নাসির উদ্দিনের হাতে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার তুলে দেন জনপ্রিয় চিত্রনায়ক আমিন খান, ওয়ালটন ডিস্ট্রিবিউটর নেটওয়ার্কের হেড অব সেলস ফিরোজ আলম এবং ওয়ালটন ফ্রিজের চিফ বিজনেস অফিসার (সিবিও) তোফায়েল আহমেদ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন—উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বদিউল হাই লিটন চৌধুরী, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম চৌধুরী, প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ নাসির, ওয়ালটন ফ্রিজের প্রোডাক্ট ম্যানেজার শহিদুল ইসলাম রেজা, শাহ আমানত ইলেকট্রনিক্সের স্বত্বাধিকারী লোকমান তালুকদার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, অনলাইনে গ্রাহকদের দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা নিশ্চিত করতে ডিজিটাল পদ্ধতিতে কাস্টমার ডাটাবেজ তৈরি করছে ওয়ালটন। সেজন্য সারা দেশে চালাচ্ছে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। এখন চলছে সিজন-১৯। এর আওতায় দেশের যেকোনো ওয়ালটন প্লাজা, পরিবেশক শোরুম বা অনলাইন সেলস প্ল্যাটফর্ম ই-প্লাজা থেকে ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে ২০০ শতাংশ পর্যন্ত ক্যাশ ভাউচারসহ কোটি কোটি টাকার ক্যাশ ভাউচার পাচ্ছেন ক্রেতারা। ইতোমধ্যে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পেয়েছেন বেশ কয়েকজন ক্রেতা। এই সুবিধা ৩১ ডিসেম্বর, ২০২৩ তারিখ পর্যন্ত পাওয়া যাবে।

জানা গেছে, রাঙ্গুনিয়া আদর্শ বহুমুখী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ে ২৩ বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন নাসির উদ্দিন। চলতি মাসের ৪ তারিখে শাহ আমানত ইলেকট্রনিক্স থেকে একটি ওয়ালটন ফ্রিজ কেনেন তিনি। ফ্রিজটি কেনার পর তার নাম, মোবাইল নাম্বার ও ক্রয়কৃত ফ্রিজের মডেল নাম্বার ডিজিটাল পদ্ধতিতে রেজিস্ট্রেশন করা হয়। এর কিছুক্ষণ পরেই ওয়ালটন থেকে তার মোবাইলে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার একটি এসএমএস আসে।

ক্যাশ ভাউচার হস্তান্তর অনুষ্ঠানে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় উচ্ছ্বসিত ওই স্কুল শিক্ষক বলেন, আগে থেকেই ওয়ালটনের ফ্রিজ ব্যবহার করছি। এখন সংসার বড় হয়েছে। তাই, ওয়ালটনের শোরুমে গিয়ে বড় দেখে নতুন আরেকটি ফ্রিজ কিনি। কেনার পরে আমার মোবাইলে ২০০ শতাংশ ক্যাশ ভাউচার পাওয়ার ম্যাসেজ আসে। ওই ক্যাশ ভাউচার দিয়ে অনেকগুলো ইলেকট্রনিক্স পণ্য কিনতে পারার পাশাপাশি চিত্রনায়ক আমিন খানের কাছ থেকে ক্যাশ ভাউচার নিতে পেরে আমি অনেক আনন্দিত। দেশীয় ব্র্যান্ড ওয়ালটনের ফ্রিজ কিনে আমি দেশের অর্থনীতিতে কিছুটা হলেও অবদান রাখছি, এটা ভেবেও ভালো লাগছে।

চিত্রনায়ক আমিন খান বলেন, ইতোমধ্যে ওয়ালটনের পণ্য সারা দেশের মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে গেছে। মানুষের কাছে আলাদা গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে ওয়ালটন পণ্য। ওয়ালটন গ্রাহকদের শুধু আন্তর্জাতিক মানের সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও ফিচারের পণ্যই তুলে দিচ্ছে না, সর্বোচ্চ বিক্রয়োত্তর সুবিধা প্রদানেও বদ্ধপরিকর। আজকের অনুষ্ঠান প্রমাণ করে, ক্রেতাকে দেওয়া কথা রাখে ওয়ালটন।

এ সময় দেশে উৎপাদিত ওয়ালটন পণ্য কিনে দেশের অর্থনীতিকে সচল রাখতে অনুরোধ জানান তিনি।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ওয়ালটন ফ্রিজে গ্রাহকরা পাচ্ছেন ১ বছরের রিপ্লেসমেন্টসহ কম্প্রেসরে ১২ বছর পর্যন্ত গ্যারান্টি ও ৫ বছরের ফ্রি বিক্রয়োত্তর সুবিধা। এছাড়া, আইএসও সনদপ্রাপ্ত ওয়ালটন সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় দেশব্যাপী বিস্তৃত ৮২টি সার্ভিস সেন্টার থেকে দ্রুত সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা পাচ্ছেন গ্রাহকরা।