ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পবিত্র কাবা শরিফ এবং মসজিদে নববীতে বিয়ে পড়ানোর অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ১১:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪
  • 77

কাবা শরিফ এবং মসজিদে নববীতে বিয়ে পড়ানোর অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব। মক্কা-মদিনায় আসা হজ ও ওমরাহ যাত্রীদের অভিজ্ঞতাকে আরও সমৃদ্ধ করার অংশ হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সৌদির আল ওয়াতান পত্রিকার বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে গালফ নিউজ।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পবিত্র মক্কা ও মদিনায় যেন স্বস্তিতে বিয়ে পড়ানো যায় সেজন্য দেশটির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় এই উদ্যোগ নিয়েছে। বিশেষজ্ঞরা এই উদ্যোগকে বিভিন্ন কোম্পানির জন্য উদ্ভাবনী ধারণা নিয়ে আসার একটি সুযোগ বলে অভিহিত করেছেন। তবে কাবা শরিফ এবং মসজিদে নববীতে শ্রদ্ধার সঙ্গেই এ ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সৌদিতে মাজউন হিসেবে পরিচিত বিয়ে বিষয়ক কর্মকর্তা মুসায়েদ আল জাবরি বলেছেন, মসজিদে বিয়ের চুক্তি পরিচালনা করা ইসলামে অনুমোদিত একটি বিষয়। তিনি বলেন, মহানবি হযরত মুহাম্মদ (সা.) একবার এক সাহাবীর বিয়ে মসজিদে পড়িয়েছেন।

আল জাবরি বলেন, মসজিদে নববীতে বিয়ে সম্পন্ন করার বিষয়টি ইতোমধ্যেই মদিনার স্থানীয়দের মধ্যে বেশ সাধারণ ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তিনি বলেন, মদিনার অনেক মানুষ ঐতিহ্যগতভাবে বিয়েতে তাদের সব আত্মীয়-স্বজনকে দাওয়াত দেন। বেশিরভাগ সময়ই কনের পরিবার সবার জন্য ঘরে জায়গা করতে পারে না। ফলে মসজিদে নববী বা কাবায় এসে বিয়ে পড়ানো হয়।

মাসুদ আল জাবরি জানান, অনেকের বিশ্বাস মসজিদে বিয়ে পড়ানো হলে সেটা আশীবার্দ এবং সৌভাগ্য বয়ে আনে। তিনি বলেন, মসজিদে নববী অথবা কাবা শরিফে যারা বিয়ে পড়াতে আসবেন তাদের কিছু নিয়ম-কানুন মানতে হবে। জোরে শব্দ করে মুসল্লিদের মনযোগ নষ্ট করা যাবে না, মসজিদের পবিত্রতা রক্ষা করতে হবে এবং কফি, মিষ্টি বা অন্য খাবার বেশি পরিমাণে আনা যাবে না।

সৌদি আরবের অভ্যন্তরে এবং বাইরের বিভিন্ন দেশ থেকে লাখ লাখ মুসলিম প্রতি বছর ওমরাহ পালনের জন্য গ্র্যান্ড মসজিদে যায় এবং মদিনার মসজিদে নববী এবং অন্যান্য ইসলামিক স্থাপনা পরিদর্শন করে থাকেন।

ট্যাগস

পবিত্র কাবা শরিফ এবং মসজিদে নববীতে বিয়ে পড়ানোর অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব

আপডেট সময় ১১:৪৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৪

কাবা শরিফ এবং মসজিদে নববীতে বিয়ে পড়ানোর অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব। মক্কা-মদিনায় আসা হজ ও ওমরাহ যাত্রীদের অভিজ্ঞতাকে আরও সমৃদ্ধ করার অংশ হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সৌদির আল ওয়াতান পত্রিকার বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে গালফ নিউজ।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পবিত্র মক্কা ও মদিনায় যেন স্বস্তিতে বিয়ে পড়ানো যায় সেজন্য দেশটির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় এই উদ্যোগ নিয়েছে। বিশেষজ্ঞরা এই উদ্যোগকে বিভিন্ন কোম্পানির জন্য উদ্ভাবনী ধারণা নিয়ে আসার একটি সুযোগ বলে অভিহিত করেছেন। তবে কাবা শরিফ এবং মসজিদে নববীতে শ্রদ্ধার সঙ্গেই এ ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

সৌদিতে মাজউন হিসেবে পরিচিত বিয়ে বিষয়ক কর্মকর্তা মুসায়েদ আল জাবরি বলেছেন, মসজিদে বিয়ের চুক্তি পরিচালনা করা ইসলামে অনুমোদিত একটি বিষয়। তিনি বলেন, মহানবি হযরত মুহাম্মদ (সা.) একবার এক সাহাবীর বিয়ে মসজিদে পড়িয়েছেন।

আল জাবরি বলেন, মসজিদে নববীতে বিয়ে সম্পন্ন করার বিষয়টি ইতোমধ্যেই মদিনার স্থানীয়দের মধ্যে বেশ সাধারণ ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তিনি বলেন, মদিনার অনেক মানুষ ঐতিহ্যগতভাবে বিয়েতে তাদের সব আত্মীয়-স্বজনকে দাওয়াত দেন। বেশিরভাগ সময়ই কনের পরিবার সবার জন্য ঘরে জায়গা করতে পারে না। ফলে মসজিদে নববী বা কাবায় এসে বিয়ে পড়ানো হয়।

মাসুদ আল জাবরি জানান, অনেকের বিশ্বাস মসজিদে বিয়ে পড়ানো হলে সেটা আশীবার্দ এবং সৌভাগ্য বয়ে আনে। তিনি বলেন, মসজিদে নববী অথবা কাবা শরিফে যারা বিয়ে পড়াতে আসবেন তাদের কিছু নিয়ম-কানুন মানতে হবে। জোরে শব্দ করে মুসল্লিদের মনযোগ নষ্ট করা যাবে না, মসজিদের পবিত্রতা রক্ষা করতে হবে এবং কফি, মিষ্টি বা অন্য খাবার বেশি পরিমাণে আনা যাবে না।

সৌদি আরবের অভ্যন্তরে এবং বাইরের বিভিন্ন দেশ থেকে লাখ লাখ মুসলিম প্রতি বছর ওমরাহ পালনের জন্য গ্র্যান্ড মসজিদে যায় এবং মদিনার মসজিদে নববী এবং অন্যান্য ইসলামিক স্থাপনা পরিদর্শন করে থাকেন।