ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজধানীতে গলায় দরি দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৪
  • 81

রাজধানীর নিকেতনে ফোনে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে মো. রাসেল (৩২) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিহত পেশায় একজন চালক।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) রাতের দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত সাড়ে ১২টায় মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের সহকর্মী মো. মিলন জানান, আমরা একই কোম্পানির গাড়ির ড্রাইভার হিসেবে চাকরি করি। পাশাপাশি রুমে থাকি। গত রাতে তার রুমে গিয়ে দেখি সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় রশি পেঁচিয়ে ঝুলে আছে। পরে আমরা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

তিনি জানান, গত ৩-৪ মাস আগে সে বিয়ে করে। গতকাল মোবাইল ফোনে তার স্ত্রীর সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

তিনি আরও জানান, নিহতে বাড়ি শরীয়তপুর জেলা ডামুড্যা উপজেলায়। বর্তমানে গুলশানের নিকেতনে থাকতো। নিকেতনের একটি কোম্পানিতে প্রাইভেট কারের চালক হিসেবে কর্মরত ছিল।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মরদেহ ঢামেক হাসপাতালে জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।

ট্যাগস

রাজধানীতে গলায় দরি দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

আপডেট সময় ০৩:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৪

রাজধানীর নিকেতনে ফোনে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে মো. রাসেল (৩২) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। নিহত পেশায় একজন চালক।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) রাতের দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রাত সাড়ে ১২টায় মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের সহকর্মী মো. মিলন জানান, আমরা একই কোম্পানির গাড়ির ড্রাইভার হিসেবে চাকরি করি। পাশাপাশি রুমে থাকি। গত রাতে তার রুমে গিয়ে দেখি সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় রশি পেঁচিয়ে ঝুলে আছে। পরে আমরা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে।

তিনি জানান, গত ৩-৪ মাস আগে সে বিয়ে করে। গতকাল মোবাইল ফোনে তার স্ত্রীর সাথে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

তিনি আরও জানান, নিহতে বাড়ি শরীয়তপুর জেলা ডামুড্যা উপজেলায়। বর্তমানে গুলশানের নিকেতনে থাকতো। নিকেতনের একটি কোম্পানিতে প্রাইভেট কারের চালক হিসেবে কর্মরত ছিল।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মরদেহ ঢামেক হাসপাতালে জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।