ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মালয়েশিয়ার রাজা হিসেবে শপথ নিলেন সুলতান ইব্রাহিম সুলতান ইস্কান্দার

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪
  • 77

Sultan of Johor, Sultan Ibrahim Iskandar (C) signs documents during the oath taking ceremony as the 17th King of Malaysia at the National Palace in Kuala Lumpur, Malaysia, 31 January 2024. EFE/EPA/MOHD RASFAN / POOL

মালয়েশিয়ার নতুন রাজা হিসেবে শপথ নিলেন সুলতান ইব্রাহিম সুলতান ইস্কান্দার। শত বছরের ঐতিহ্য মেনে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলীয় জোহর রাজ্যের এই সুলতান আগামী পাঁচ বছরের জন্যে দেশের ১৭তম রাজা হিসেবে সিংহাসনে আরোহণ করলেন।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, আজ (৩১ জানুয়ারি) কুয়ালালামপুরের জাতীয় প্রাসাদে আয়োজিত শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে দেশটির প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিমসহ শতাধিক অতিথি অংশ যোগ দিয়েছিলেন।

এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ৬৫ বছর বয়সী সুলতান ইব্রাহিম বর্তমান রাজা আল-সুলতান আবদুল্লাহ সুলতান আহমেদ শাহের স্থলাভিষিক্ত হলেন। সুলতান আবদুল্লাহ তার পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ করায় নিজ রাজ্য পাহাংয়ের নেতৃত্বে ফিরে যাবেন।

১৩টি রাজ্য ও ৩টি ঐক্যবদ্ধ প্রদেশ নিয়ে গঠিত মালয়েশিয়ায় বর্তমানে রাজ পরিবার রয়েছে ৯টি। চক্রাকারে প্রতি ৫ বছর পর পর প্রত্যেক রাজ পরিবারের প্রধান ব্যক্তিকে রাজা হিসেবে মনোনীত করা হয়। এই কাজটি মূলত পরিচালনা করে দেশটির রয়্যাল কাউন্সিল।

মালয়েশিয়ায় মন্ত্রিপরিষদ শাসিত সরকার ব্যবস্থা প্রচলিত। দেশটিতে রাষ্ট্রপ্রধানের পদটি নির্ধারিত থাকে রাজার জন্য। সাংবিধানিকভাবে মালয়েশিয়ার রাজার মেয়াদ ৫ বছর এবং তার ক্ষমতা বেশ সীমিত অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীকে নিয়োগ, পার্লামেন্টের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পর তা ভেঙে দেওয়া এবং প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রীপরিষদকে শাসন সংক্রান্ত পরামর্শ দেওয়া, সর্বোচ্চ আদালতে দোষী অপরাধীকে ক্ষমা করা- প্রভৃতির মধ্যেই তার ক্ষমতা সীমাবদ্ধ।

মালয়েশিয়ায় রাজতন্ত্রকে মূলত রাজনীতির ঊর্ধ্বে দেখা হয়, তবে গত কয়েক বছরের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা চলমান থাকায় দেশটির অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে দিন দিন রাজার প্রভাব বাড়ছে।

সুলতান ইব্রাহিম তার স্পষ্টবাদীতা ও দৃঢ় ব্যক্তিত্বের জন্য বেশ আলোচিত। প্রায়শই দেশের রাজনৈতিক বিষয়গুলো নিয়ে তিনি কথা বলেন থাকেন।

নতুন রাজা সুলতান ইব্রাহিম বিলাসবহুল গাড়ি ও মোটরবাইকের বিশাল সংগ্রহের জন্যও পরিচিত। তার রিয়েল এস্টেট থেকে শুরু করে খনিরও ব্যবসা রয়েছে। এছাড়াও জোহর রাজ্যে একটি উন্নয়ন প্রকল্পে তার অংশীদারিত্ব রয়েছে; যেখানে ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে চীন।

সিংহাসনে বসার আগে, সুলতান ইব্রাহিম সিঙ্গাপুরের দ্য স্ট্রেইটস টাইমস পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে, তিনি একজন সক্রিয় রাজা হতে চান। এসময় তিনি মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় তেল সংস্থা পেট্রোলিয়াম ন্যাশনাল ও দেশটির দুর্নীতি বিরোধী সংস্থাকে সরাসরি রাজাকে রিপোর্ট করার প্রস্তাব করেছিলেন।

এছাড়াও তিনি মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুরের মধ্যে স্থগিত হওয়া হাই-স্পিড রেল সংযোগ প্রকল্পকে পুনরায় চালু করার পরিকল্পনার কথাও বলেছেন।

প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিম পরে বিবৃতিগুলোকে হেয় করে বলেন, ফেডারেল সংবিধানকে উপেক্ষা না করে সব মতামত নিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে।

মালয়েশিয়ায় রাজনৈতিক উত্তেজনার মধ্যে নতুন রাজা হিসেবে সুলতান ইব্রাহিম দায়িত্ব পালন করতে যাচ্ছেন।

দেশটিতে ২০১৮ সাল থেকে রাজনৈতিক অস্থিরতা চলছে। মালয়েশিয়ার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ২০১৮ সালে তৎকালীন সরকারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাতের ঘটনা ঘটেছিল। যা রাজাকে আরও বড় ভূমিকা পালন করতে প্ররোচিত করে।

সুলতান ইব্রাহিমের পূর্বসূরি, আল-সুলতান আবদুল্লাহ তার শাসনামলে রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা সমাধানের জন্য তিনবার তার বিশেষ ক্ষমতা (প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ) প্রয়োগ করেন। দুইবার সরকার পতনের পরে এবং সর্বশেষ ২০২২ সালে জাতীয় নির্বাচন শেষে ঝুলন্ত পার্লামেন্ট পরিস্থিতিতে আনোয়ার ইব্রাহিমকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেন।

ট্যাগস

মালয়েশিয়ার রাজা হিসেবে শপথ নিলেন সুলতান ইব্রাহিম সুলতান ইস্কান্দার

আপডেট সময় ০৩:০২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪

মালয়েশিয়ার নতুন রাজা হিসেবে শপথ নিলেন সুলতান ইব্রাহিম সুলতান ইস্কান্দার। শত বছরের ঐতিহ্য মেনে জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে দক্ষিণাঞ্চলীয় জোহর রাজ্যের এই সুলতান আগামী পাঁচ বছরের জন্যে দেশের ১৭তম রাজা হিসেবে সিংহাসনে আরোহণ করলেন।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, আজ (৩১ জানুয়ারি) কুয়ালালামপুরের জাতীয় প্রাসাদে আয়োজিত শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে দেশটির প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিমসহ শতাধিক অতিথি অংশ যোগ দিয়েছিলেন।

এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ৬৫ বছর বয়সী সুলতান ইব্রাহিম বর্তমান রাজা আল-সুলতান আবদুল্লাহ সুলতান আহমেদ শাহের স্থলাভিষিক্ত হলেন। সুলতান আবদুল্লাহ তার পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ করায় নিজ রাজ্য পাহাংয়ের নেতৃত্বে ফিরে যাবেন।

১৩টি রাজ্য ও ৩টি ঐক্যবদ্ধ প্রদেশ নিয়ে গঠিত মালয়েশিয়ায় বর্তমানে রাজ পরিবার রয়েছে ৯টি। চক্রাকারে প্রতি ৫ বছর পর পর প্রত্যেক রাজ পরিবারের প্রধান ব্যক্তিকে রাজা হিসেবে মনোনীত করা হয়। এই কাজটি মূলত পরিচালনা করে দেশটির রয়্যাল কাউন্সিল।

মালয়েশিয়ায় মন্ত্রিপরিষদ শাসিত সরকার ব্যবস্থা প্রচলিত। দেশটিতে রাষ্ট্রপ্রধানের পদটি নির্ধারিত থাকে রাজার জন্য। সাংবিধানিকভাবে মালয়েশিয়ার রাজার মেয়াদ ৫ বছর এবং তার ক্ষমতা বেশ সীমিত অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রীকে নিয়োগ, পার্লামেন্টের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পর তা ভেঙে দেওয়া এবং প্রধানমন্ত্রী ও মন্ত্রীপরিষদকে শাসন সংক্রান্ত পরামর্শ দেওয়া, সর্বোচ্চ আদালতে দোষী অপরাধীকে ক্ষমা করা- প্রভৃতির মধ্যেই তার ক্ষমতা সীমাবদ্ধ।

মালয়েশিয়ায় রাজতন্ত্রকে মূলত রাজনীতির ঊর্ধ্বে দেখা হয়, তবে গত কয়েক বছরের চিত্র সম্পূর্ণ ভিন্ন। রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতা চলমান থাকায় দেশটির অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে দিন দিন রাজার প্রভাব বাড়ছে।

সুলতান ইব্রাহিম তার স্পষ্টবাদীতা ও দৃঢ় ব্যক্তিত্বের জন্য বেশ আলোচিত। প্রায়শই দেশের রাজনৈতিক বিষয়গুলো নিয়ে তিনি কথা বলেন থাকেন।

নতুন রাজা সুলতান ইব্রাহিম বিলাসবহুল গাড়ি ও মোটরবাইকের বিশাল সংগ্রহের জন্যও পরিচিত। তার রিয়েল এস্টেট থেকে শুরু করে খনিরও ব্যবসা রয়েছে। এছাড়াও জোহর রাজ্যে একটি উন্নয়ন প্রকল্পে তার অংশীদারিত্ব রয়েছে; যেখানে ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করেছে চীন।

সিংহাসনে বসার আগে, সুলতান ইব্রাহিম সিঙ্গাপুরের দ্য স্ট্রেইটস টাইমস পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে, তিনি একজন সক্রিয় রাজা হতে চান। এসময় তিনি মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় তেল সংস্থা পেট্রোলিয়াম ন্যাশনাল ও দেশটির দুর্নীতি বিরোধী সংস্থাকে সরাসরি রাজাকে রিপোর্ট করার প্রস্তাব করেছিলেন।

এছাড়াও তিনি মালয়েশিয়া ও সিঙ্গাপুরের মধ্যে স্থগিত হওয়া হাই-স্পিড রেল সংযোগ প্রকল্পকে পুনরায় চালু করার পরিকল্পনার কথাও বলেছেন।

প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার ইব্রাহিম পরে বিবৃতিগুলোকে হেয় করে বলেন, ফেডারেল সংবিধানকে উপেক্ষা না করে সব মতামত নিয়ে আলোচনা করা যেতে পারে।

মালয়েশিয়ায় রাজনৈতিক উত্তেজনার মধ্যে নতুন রাজা হিসেবে সুলতান ইব্রাহিম দায়িত্ব পালন করতে যাচ্ছেন।

দেশটিতে ২০১৮ সাল থেকে রাজনৈতিক অস্থিরতা চলছে। মালয়েশিয়ার ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ২০১৮ সালে তৎকালীন সরকারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাতের ঘটনা ঘটেছিল। যা রাজাকে আরও বড় ভূমিকা পালন করতে প্ররোচিত করে।

সুলতান ইব্রাহিমের পূর্বসূরি, আল-সুলতান আবদুল্লাহ তার শাসনামলে রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা সমাধানের জন্য তিনবার তার বিশেষ ক্ষমতা (প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ) প্রয়োগ করেন। দুইবার সরকার পতনের পরে এবং সর্বশেষ ২০২২ সালে জাতীয় নির্বাচন শেষে ঝুলন্ত পার্লামেন্ট পরিস্থিতিতে আনোয়ার ইব্রাহিমকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেন।