ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, ১০ জন আহত

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৩:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪
  • 95

ঝিনাইদহের শৈলকূপায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে মজিবর বিশ্বাস, শিপন, আজিম, ফরিদ ও বাহার বিশ্বাসকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন বগুড়া ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম শিমুল ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলামের মধ্যে বিরোধ চলছিল। সদ্য সমাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর নৌকার সমর্থক শফিকুল ইসলামের রতনাট গ্রামের কর্মী মনোয়ার, খবির মণ্ডল ও হাবিবুর রহমান ট্রাক মার্কার সমর্থক নজরুল ইসলামের সামাজিক দলে যোগ দেয় করে। দল পরিবর্তনের বিরোধে সকালে শিমুলের সমর্থক কয়েকজনকে মারধর করে প্রতিপক্ষের সমর্থকরা। এর জের ধরে রতনাট গ্রামে উভয়পক্ষের কয়েকটি গ্রামের সমর্থকরা ঢাল, শর্কি, লাঠি, রামদা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়।

বগুড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শিমুল বলেন, এলাকাবাসীসহ সবাইকে বলে আসছি কোনো ধরনের সংঘাতে আপনারা জড়াবেন না। কিন্তু এসব কথা না শুনে সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম তার সামাজিক দলে যোগদানের জন্য আমার সমর্থকদের ওপর বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ হামলা চালিয়ে আসছে। সংঘাত কোনো সমস্যার সমাধান হতে পারে না।

পাল্টা অভিযোগ করে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের ছেলে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিব বাহাদুর জানান, সামাজিক দল পরিবর্তন করে তাদের সামাজিক দলে যোগ দেওয়াই বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থকরা তাদের সমর্থকদের উপর হামলা চালিয়ে ভীতিকর অবস্থার সৃষ্টি করছে এলাকায়।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. নুসরাত ইয়াসমিন জানান, আহতদের কয়েকজনের শরীরের ধারালো অস্ত্রের আঘাত এবং কয়েকজনের শরীরে পেটানোর আঘাত আছে। তবে এদের মধ্যে ফরিদের অবস্থা আশংকাজনক।

ট্যাগস

আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, ১০ জন আহত

আপডেট সময় ০৩:৪২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩১ জানুয়ারী ২০২৪

ঝিনাইদহের শৈলকূপায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

আহতদের মধ্যে মজিবর বিশ্বাস, শিপন, আজিম, ফরিদ ও বাহার বিশ্বাসকে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন বগুড়া ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম শিমুল ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলামের মধ্যে বিরোধ চলছিল। সদ্য সমাপ্ত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর নৌকার সমর্থক শফিকুল ইসলামের রতনাট গ্রামের কর্মী মনোয়ার, খবির মণ্ডল ও হাবিবুর রহমান ট্রাক মার্কার সমর্থক নজরুল ইসলামের সামাজিক দলে যোগ দেয় করে। দল পরিবর্তনের বিরোধে সকালে শিমুলের সমর্থক কয়েকজনকে মারধর করে প্রতিপক্ষের সমর্থকরা। এর জের ধরে রতনাট গ্রামে উভয়পক্ষের কয়েকটি গ্রামের সমর্থকরা ঢাল, শর্কি, লাঠি, রামদা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়।

বগুড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শিমুল বলেন, এলাকাবাসীসহ সবাইকে বলে আসছি কোনো ধরনের সংঘাতে আপনারা জড়াবেন না। কিন্তু এসব কথা না শুনে সাবেক চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম তার সামাজিক দলে যোগদানের জন্য আমার সমর্থকদের ওপর বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শনসহ হামলা চালিয়ে আসছে। সংঘাত কোনো সমস্যার সমাধান হতে পারে না।

পাল্টা অভিযোগ করে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের ছেলে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক রাজিব বাহাদুর জানান, সামাজিক দল পরিবর্তন করে তাদের সামাজিক দলে যোগ দেওয়াই বর্তমান ইউপি চেয়ারম্যানের সমর্থকরা তাদের সমর্থকদের উপর হামলা চালিয়ে ভীতিকর অবস্থার সৃষ্টি করছে এলাকায়।

শৈলকুপা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। বর্তমানে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. নুসরাত ইয়াসমিন জানান, আহতদের কয়েকজনের শরীরের ধারালো অস্ত্রের আঘাত এবং কয়েকজনের শরীরে পেটানোর আঘাত আছে। তবে এদের মধ্যে ফরিদের অবস্থা আশংকাজনক।