ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাজধানীর ডেমরায় একটি গুদামে লাগা আগুন সাড়ে ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ১০:৩১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪
  • 53

রাজধানীর ডেমরায় একটি গুদামে লাগা আগুন সাড়ে ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে এসেছে।শুক্রবার (২২ মার্চ) সকাল ৮টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে বলে ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে আজ সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জানানো হয়, আগুন পুরোপুরি নেভাতে কাজ চলছে। ফায়ার সার্ভিসের ১১টি ইউনিট আগুন নেভাতে কাজ করছে।বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ডেমরার ভাঙ্গা প্রেস এলাকার গুদামটিতে আগুন লাগে। খবর পেয়ে রাত পৌনে ১২টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। পরে বাকি ইউনিটগুলো যোগ দেয়।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (উন্নয়ন ও প্রশিক্ষণ) লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. রেজাউল করিম গণমাধ্যমকে বলেন, আগুন আর বাইরে ছড়ানোর সম্ভাবনা নেই। তবে, সম্পূর্ণভাবে নেভাতে আরও সময় লাগতে পারে। কারণ ভবনটিতে কোনো বিকল্প এক্সিট পয়েন্ট নেই। ভবনটির অবকাঠামোগত ক্ষতির ঝুঁকিও আছে। এছাড়া ভেতরে দাহ্য পদার্থ ও খেলার সামগ্রী আছে। এছাড়াও ভবনটির আশপাশে পানির কোনো উৎস নেই। সিঁড়িগুলোও খুবই সংকীর্ণ। নিজস্ব কোনো ওয়াটার রিজার্ভারও নেই ভবনটিতে।

ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানায়, চারতলা ভবনটির তৃতীয় তলা থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

আগুনের ঘটনায় হতাহতের কোনো তথ্য এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।

ট্যাগস

রাজধানীর ডেমরায় একটি গুদামে লাগা আগুন সাড়ে ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে

আপডেট সময় ১০:৩১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০২৪

রাজধানীর ডেমরায় একটি গুদামে লাগা আগুন সাড়ে ৮ ঘণ্টা পর নিয়ন্ত্রণে এসেছে।শুক্রবার (২২ মার্চ) সকাল ৮টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে বলে ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে আজ সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জানানো হয়, আগুন পুরোপুরি নেভাতে কাজ চলছে। ফায়ার সার্ভিসের ১১টি ইউনিট আগুন নেভাতে কাজ করছে।বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ডেমরার ভাঙ্গা প্রেস এলাকার গুদামটিতে আগুন লাগে। খবর পেয়ে রাত পৌনে ১২টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে যায়। পরে বাকি ইউনিটগুলো যোগ দেয়।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (উন্নয়ন ও প্রশিক্ষণ) লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. রেজাউল করিম গণমাধ্যমকে বলেন, আগুন আর বাইরে ছড়ানোর সম্ভাবনা নেই। তবে, সম্পূর্ণভাবে নেভাতে আরও সময় লাগতে পারে। কারণ ভবনটিতে কোনো বিকল্প এক্সিট পয়েন্ট নেই। ভবনটির অবকাঠামোগত ক্ষতির ঝুঁকিও আছে। এছাড়া ভেতরে দাহ্য পদার্থ ও খেলার সামগ্রী আছে। এছাড়াও ভবনটির আশপাশে পানির কোনো উৎস নেই। সিঁড়িগুলোও খুবই সংকীর্ণ। নিজস্ব কোনো ওয়াটার রিজার্ভারও নেই ভবনটিতে।

ফায়ার সার্ভিস সূত্র জানায়, চারতলা ভবনটির তৃতীয় তলা থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

আগুনের ঘটনায় হতাহতের কোনো তথ্য এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি।