ঢাকা , শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কানাডায় শিখ নেতা হত্যাকাণ্ডে ৩ ভারতীয় গ্রেফতার

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৯:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৪ মে ২০২৪
  • 29

কানাডার পুলিশের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্রেফতার তিনজন হলেন করণ ব্রার (২২), কমল প্রিত সিং (২২) ও করণ প্রিত সিং (২৮)। তারা সবাই এডমন্টন শহরের বাসিন্দা। আদালতের নথিপত্র অনুযায়ী, তাদের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, নিজ্জর হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে। ওই হত্যার সঙ্গে ভারত সরকারের সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। গ্রেফতার তিনজনের বাইরে আরও অনেকেই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন। তাই সামনে আরও অনেককে গ্রেফতার করা হতে পারে এবং তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হতে পারে।

গত বছরের জুন মাসে কানাডায় খালিস্তানি নেতা হারদীপ সিং নিজ্জরকে হত্যা করা হয়। ওই হত্যাকাণ্ডে ভারতীয় সরকার জড়িত বলে পার্লামেন্টে এক বক্তব্যে অভিযোগ করেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

ট্রুডোর ওই অভিযোগের পর কানাডা ও ভারতের মধ্যে কূটনৈতিক টানাপোড়েন দেখা দেয়। হত্যায় জড়িত থাকার বিষয়টিও অস্বীকার করে নয়াদিল্লি।

ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যে স্বাধীন শিখ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে খালিস্তান আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন নিজ্জর। তিনি বিচ্ছিন্নতাবাদী একটি সশস্ত্র একটি গোষ্ঠীর নেতৃত্বে ছিলেন-এমন অভিযোগে তাকে সন্ত্রাসী তকমা দিয়েছিল ভারত। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছেন নিজ্জরের সমর্থকেরা। তাদের ভাষ্য, খালিস্তান আন্দোলনের পক্ষে থাকায় একাধিকবার হত্যার হুমকি পেয়েছিলেন নিজ্জর।

গত শতকের সত্তরের দশকে ভারতে বিচ্ছিন্নতাবাদী বিদ্রোহ শুরু করেন দেশটির শিখ সম্প্রদায়ের অনেকে। ওই বিদ্রোহের জেরে সে সময় হাজারো মানুষ নিহত হয়েছিলেন। এরপরও কয়েক দশক ধরে ওই বিদ্রোহের রেশ থেকে যায়। বর্তমানে ভারতের বাইরে বিভিন্ন দেশে পাঞ্জাবে স্বাধীন রাষ্ট্রের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিখেরা।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

কানাডায় শিখ নেতা হত্যাকাণ্ডে ৩ ভারতীয় গ্রেফতার

আপডেট সময় ০৯:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৪ মে ২০২৪

কানাডার পুলিশের বরাত দিয়ে বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্রেফতার তিনজন হলেন করণ ব্রার (২২), কমল প্রিত সিং (২২) ও করণ প্রিত সিং (২৮)। তারা সবাই এডমন্টন শহরের বাসিন্দা। আদালতের নথিপত্র অনুযায়ী, তাদের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে।

পুলিশ আরও জানিয়েছে, নিজ্জর হত্যাকাণ্ডের তদন্ত চলছে। ওই হত্যার সঙ্গে ভারত সরকারের সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। গ্রেফতার তিনজনের বাইরে আরও অনেকেই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকতে পারেন। তাই সামনে আরও অনেককে গ্রেফতার করা হতে পারে এবং তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হতে পারে।

গত বছরের জুন মাসে কানাডায় খালিস্তানি নেতা হারদীপ সিং নিজ্জরকে হত্যা করা হয়। ওই হত্যাকাণ্ডে ভারতীয় সরকার জড়িত বলে পার্লামেন্টে এক বক্তব্যে অভিযোগ করেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

ট্রুডোর ওই অভিযোগের পর কানাডা ও ভারতের মধ্যে কূটনৈতিক টানাপোড়েন দেখা দেয়। হত্যায় জড়িত থাকার বিষয়টিও অস্বীকার করে নয়াদিল্লি।

ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যে স্বাধীন শিখ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে খালিস্তান আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন নিজ্জর। তিনি বিচ্ছিন্নতাবাদী একটি সশস্ত্র একটি গোষ্ঠীর নেতৃত্বে ছিলেন-এমন অভিযোগে তাকে সন্ত্রাসী তকমা দিয়েছিল ভারত। তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছেন নিজ্জরের সমর্থকেরা। তাদের ভাষ্য, খালিস্তান আন্দোলনের পক্ষে থাকায় একাধিকবার হত্যার হুমকি পেয়েছিলেন নিজ্জর।

গত শতকের সত্তরের দশকে ভারতে বিচ্ছিন্নতাবাদী বিদ্রোহ শুরু করেন দেশটির শিখ সম্প্রদায়ের অনেকে। ওই বিদ্রোহের জেরে সে সময় হাজারো মানুষ নিহত হয়েছিলেন। এরপরও কয়েক দশক ধরে ওই বিদ্রোহের রেশ থেকে যায়। বর্তমানে ভারতের বাইরে বিভিন্ন দেশে পাঞ্জাবে স্বাধীন রাষ্ট্রের দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন শিখেরা।