ঢাকা , শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মিথ্যার ওপর টিকে থাকা সরকার বেশিদিন টিকবে না: ফখরুল

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৯:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪
  • 12

বর্তমান সরকার তথা শাসকগোষ্ঠী মিথ্যার ওপর টিকে আছে মন্তব্য করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী শাসকগোষ্ঠী জনগণকে মিথ্যা কথা বলছে, মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে। তারা মিথ্যার ওপর টিকে থাকতে চায়। তবে মিথ্যার ওপর টিকে থাকা সরকার বেশিদিন টিকবে না।

বুধবার (১৫ মে) গুলশান বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন। বিকেলে গণফোরাম ও পিপলস পার্টির সঙ্গে বৈঠক করে বিএনপি। বৈঠকে মির্জা ফখরুল, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু ও গণফোরাম ও পিপলস পার্টির শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতার টিকে থাকার জন্য সব অপকৌশল গ্রহণ করেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অপব্যবহার করে রাষ্ট্রের যতগুলো প্রতিষ্ঠান আছে সবগুলোকে ধ্বংস করে দিয়েছে। তারা গোটা রাষ্ট্রকে একটি একদলীয় শাসন ব্যবস্থায় নিতে চায়। তারা একটি রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস সৃষ্টি করেছে।

দেশের মানুষ নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন চায় দাবি করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যে নির্বাচন করেছে জনগণ সে নির্বাচনে অংশ নেয়নি। জনগণ ভোট দেয়নি। জনগণ একটি নির্দিষ্ট সরকারের মাধ্যমে নির্বাচনে তাদের মতামত দিতে চায়।

সরকার রাষ্ট্রীয় যন্ত্র ব্যবহার করে, রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসী দিয়ে জোর করে ক্ষমতা দখল করে আছে. এমন অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ইতিহাস বলে এভাবে জোর করে বেশিদিন ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না। কিছুদিন জনগণের কষ্ট হয়, সরকার সন্ত্রাস করে ভয়-ভীতি দেখিয়ে অনেক নির্যাতন করে জনগণকে দমাতে চায়। সচেতন মানুষ এখন বলছে- দেশে মাফিয়া রাষ্ট্র কায়েম করা হয়েছে। ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে সরকার নতুন নতুন কৌশল বের করে। সেজন্যই কখনো ডামি নির্বাচন, কখনো নিশিরাতের নির্বাচন আবার কখনো বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচন করে।

সামগ্রিক বিশ্লেষণ ও ভবিষ্যৎ কর্মপদ্ধতি অবলম্বন করতেই আজ বৈঠক হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, একদলীয় শাসনব্যবস্থার উদাহরণ হচ্ছে, রাষ্ট্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সবসময় সব ক্ষেত্রে ক্ষমতাসীনদের কথাই বলে। তারা সাধারণত বাংলাদেশকে প্রমোট করেন না, তারা ওই দলটিকেই প্রমোট করেন। দেশের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক যে করুণ অবস্থা তা এর জন্যই সৃষ্টি হয়েছে।

দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু’র ঢাকা সফর প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এদেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য মার্কিন সরকার তাদের অবস্থান অব্যাহত রেখেছে। নিরপেক্ষ নির্বাচনের পক্ষেই তারা কথা বলছেন। তারা এদেশের জনগণের বিরুদ্ধে গিয়ে কোনো কাজ করছেন না।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

মিথ্যার ওপর টিকে থাকা সরকার বেশিদিন টিকবে না: ফখরুল

আপডেট সময় ০৯:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪

বর্তমান সরকার তথা শাসকগোষ্ঠী মিথ্যার ওপর টিকে আছে মন্তব্য করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী শাসকগোষ্ঠী জনগণকে মিথ্যা কথা বলছে, মিথ্যা তথ্য দিচ্ছে। তারা মিথ্যার ওপর টিকে থাকতে চায়। তবে মিথ্যার ওপর টিকে থাকা সরকার বেশিদিন টিকবে না।

বুধবার (১৫ মে) গুলশান বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন। বিকেলে গণফোরাম ও পিপলস পার্টির সঙ্গে বৈঠক করে বিএনপি। বৈঠকে মির্জা ফখরুল, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু ও গণফোরাম ও পিপলস পার্টির শীর্ষ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতার টিকে থাকার জন্য সব অপকৌশল গ্রহণ করেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে অপব্যবহার করে রাষ্ট্রের যতগুলো প্রতিষ্ঠান আছে সবগুলোকে ধ্বংস করে দিয়েছে। তারা গোটা রাষ্ট্রকে একটি একদলীয় শাসন ব্যবস্থায় নিতে চায়। তারা একটি রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস সৃষ্টি করেছে।

দেশের মানুষ নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন চায় দাবি করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার যে নির্বাচন করেছে জনগণ সে নির্বাচনে অংশ নেয়নি। জনগণ ভোট দেয়নি। জনগণ একটি নির্দিষ্ট সরকারের মাধ্যমে নির্বাচনে তাদের মতামত দিতে চায়।

সরকার রাষ্ট্রীয় যন্ত্র ব্যবহার করে, রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসী দিয়ে জোর করে ক্ষমতা দখল করে আছে. এমন অভিযোগ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ইতিহাস বলে এভাবে জোর করে বেশিদিন ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না। কিছুদিন জনগণের কষ্ট হয়, সরকার সন্ত্রাস করে ভয়-ভীতি দেখিয়ে অনেক নির্যাতন করে জনগণকে দমাতে চায়। সচেতন মানুষ এখন বলছে- দেশে মাফিয়া রাষ্ট্র কায়েম করা হয়েছে। ক্ষমতা টিকিয়ে রাখতে সরকার নতুন নতুন কৌশল বের করে। সেজন্যই কখনো ডামি নির্বাচন, কখনো নিশিরাতের নির্বাচন আবার কখনো বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচন করে।

সামগ্রিক বিশ্লেষণ ও ভবিষ্যৎ কর্মপদ্ধতি অবলম্বন করতেই আজ বৈঠক হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, একদলীয় শাসনব্যবস্থার উদাহরণ হচ্ছে, রাষ্ট্রের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সবসময় সব ক্ষেত্রে ক্ষমতাসীনদের কথাই বলে। তারা সাধারণত বাংলাদেশকে প্রমোট করেন না, তারা ওই দলটিকেই প্রমোট করেন। দেশের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক যে করুণ অবস্থা তা এর জন্যই সৃষ্টি হয়েছে।

দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক মার্কিন সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু’র ঢাকা সফর প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এদেশে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য মার্কিন সরকার তাদের অবস্থান অব্যাহত রেখেছে। নিরপেক্ষ নির্বাচনের পক্ষেই তারা কথা বলছেন। তারা এদেশের জনগণের বিরুদ্ধে গিয়ে কোনো কাজ করছেন না।