ঢাকা , শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

‘রামোজি ফিল্ম সিটি’র প্রতিষ্ঠাতা রামোজি মারা গেছেন

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০১:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ জুন ২০২৪
  • 13

বিশ্বের বৃহত্তম সিনেমা সেট ভারতের ‘রামোজি ফিল্ম সিটি’র প্রতিষ্ঠাতা রামোজি রাও মারা গেছেন। আজ (৮ জুন) ভোর ৩টা ৪৫ মিনিটে তিনি ভারতের হায়দারাবাদের একটি হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ইকোনোমিক টাইমস’ সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

‘মিডিয়া ব্যারন’ খ্যাত রামোজি রাওয়ের মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্স-এ রামোজি রাওয়ের সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করে তিনি লিখেছেন, ‘রামোজি রাও গারুর প্রয়াণ অত্যন্ত বেদনাদায়ক। ভারতীয় মিডিয়ার বিপ্লব এনেছিলেন তিনি। সংবাদমাধ্যম ও সিনেমার জগতে তার অবদান অনস্বীকার্য। ভারতের উন্নয়নের বিষয়ে তিনি ছিলেন একজন অত্য়ন্ত নিবেদিত প্রাণ।’

রামোজি রাও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের জগতে তিনি ছিলেন পথিকৃত। তার হাত ধরেই পথ চলা শুরু ইটিভি নেটওয়ার্কের। বিনোদন জগতেও তার অবদান অনস্বীকার্য। তার তৈরি ‘রামোজি ফিল্ম সিটি’ বিশ্বের বৃহত্তম সিনেমা সেট বলে বিবেচিত।

জানা গেছে, বেশ কয়েকদিন ধরেই শারীরিক অসুস্থতার কারণে ভুগছিলেন তিনি। কিছুদিন আগে তার অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হয়। এরপর উচ্চ রক্তচাপ এবং শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার কারণে গত ৫ জুন রামোজিকে হায়দরাবাদের একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

তারপর থেকে সেখানেই রামোজির চিকিৎসা চলছিল। শুক্রবার (৭ জুন) তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়। তাকে ভেন্টিলেশন সাপোর্টে রাখা হয়। এরপর শনিবার ভোরে তিনি পরপারে পাড়ি জমান।

রামোজি রাও ইনাডু সংবাদপত্র, ইটিভি নেটওয়ার্কের পাশাপাশি ‘উষাকিরণ মুভিজ’ নামে একটি প্রযোজনা সংস্থারও মালিক ছিলেন। বিভিন্ন ভাষায় সিনেমা প্রযোজনা করেছেন তিনি। ভারতের সিনেমা শিল্পে অসামান্য অদান রাখার জন্য তিনি জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন।

রামোজি সমাজসেবাতেও ছিলেন একজন অগ্রণী পুরুষ। করোনা চলাকালে ২০ কোটি রুপি ত্রাণ তহবিলে দান করে ব্যাপক প্রশংসতি হয়েছিলেন।

ট্যাগস

‘রামোজি ফিল্ম সিটি’র প্রতিষ্ঠাতা রামোজি মারা গেছেন

আপডেট সময় ০১:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৮ জুন ২০২৪

বিশ্বের বৃহত্তম সিনেমা সেট ভারতের ‘রামোজি ফিল্ম সিটি’র প্রতিষ্ঠাতা রামোজি রাও মারা গেছেন। আজ (৮ জুন) ভোর ৩টা ৪৫ মিনিটে তিনি ভারতের হায়দারাবাদের একটি হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘দ্য ইকোনোমিক টাইমস’ সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

‘মিডিয়া ব্যারন’ খ্যাত রামোজি রাওয়ের মৃত্যুকালে বয়স হয়েছিল ৮৭ বছর। তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্স-এ রামোজি রাওয়ের সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করে তিনি লিখেছেন, ‘রামোজি রাও গারুর প্রয়াণ অত্যন্ত বেদনাদায়ক। ভারতীয় মিডিয়ার বিপ্লব এনেছিলেন তিনি। সংবাদমাধ্যম ও সিনেমার জগতে তার অবদান অনস্বীকার্য। ভারতের উন্নয়নের বিষয়ে তিনি ছিলেন একজন অত্য়ন্ত নিবেদিত প্রাণ।’

রামোজি রাও ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের জগতে তিনি ছিলেন পথিকৃত। তার হাত ধরেই পথ চলা শুরু ইটিভি নেটওয়ার্কের। বিনোদন জগতেও তার অবদান অনস্বীকার্য। তার তৈরি ‘রামোজি ফিল্ম সিটি’ বিশ্বের বৃহত্তম সিনেমা সেট বলে বিবেচিত।

জানা গেছে, বেশ কয়েকদিন ধরেই শারীরিক অসুস্থতার কারণে ভুগছিলেন তিনি। কিছুদিন আগে তার অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হয়। এরপর উচ্চ রক্তচাপ এবং শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার কারণে গত ৫ জুন রামোজিকে হায়দরাবাদের একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

তারপর থেকে সেখানেই রামোজির চিকিৎসা চলছিল। শুক্রবার (৭ জুন) তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়। তাকে ভেন্টিলেশন সাপোর্টে রাখা হয়। এরপর শনিবার ভোরে তিনি পরপারে পাড়ি জমান।

রামোজি রাও ইনাডু সংবাদপত্র, ইটিভি নেটওয়ার্কের পাশাপাশি ‘উষাকিরণ মুভিজ’ নামে একটি প্রযোজনা সংস্থারও মালিক ছিলেন। বিভিন্ন ভাষায় সিনেমা প্রযোজনা করেছেন তিনি। ভারতের সিনেমা শিল্পে অসামান্য অদান রাখার জন্য তিনি জাতীয় পুরস্কার লাভ করেন।

রামোজি সমাজসেবাতেও ছিলেন একজন অগ্রণী পুরুষ। করোনা চলাকালে ২০ কোটি রুপি ত্রাণ তহবিলে দান করে ব্যাপক প্রশংসতি হয়েছিলেন।