ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সৌদির সঙ্গে মিল রেখে ঝিনাইদহে ঈদের নামাজ আদায়

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ১০:৩৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪
  • 27

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছে কয়েকটি গ্রামের মুসল্লিরা। রোববার (১৬ জুন) সকালে উপজেলা শহরের ফুটবল মাঠ সংলগ্ন দুলদুল রাইস মিলে এ ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

আয়োজকেরা জানায়, সৌদি আরবের সঙ্গে মিলে রেখে তারা কয়েক বছর ধরে ঈদ জামাতের আয়োজন করে আসছেন। এবারও ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চোরকোল, শ্যামনগর, যাদবপুর, হরিণাকুন্ডু উপজেলার দখলপুর, নারায়নকান্দি, বৈঠাপাড়া, বোয়ালিয়া, চটকাবাড়ীয়া, পারফলসী, পায়রাডাঙ্গা এবং শৈলকুপা উপজেলার ভাটইসহ রাজশাহী জেলা শহর থেকে আগত মুসল্লিরা এ ঈদের নামাজ আদায় করেন।

ঈদ জামায়াতের ইমাম রেজাউল ইসলাম বলেন, সহি হাদিসের আলোকে ২২ বছর ধরে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে হরিণাকুণ্ডুতে ঈদ নামাজ আদায় করে আসছি। এ জামাতে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেক আগত তিন শতাধিক মুসল্লি এক সঙ্গে নামাজ আদায় করতেন। এখন হরিণাকুণ্ডুর তিনটি স্থানে ঈদের জামাত হওয়ায় উপজেলা মোড়ে মুসল্লির সংখ্যা কমে গেছে।

ঈদ জামাত আয়োজক কমিটির সভাপতি আ ন ম বজলুর রহমান বলেন, ওআইসিসহ সকল মুসলিম উম্মা আজকে ঈদের নামাজ আদায় করছেন। সে কারণে আমরা ঈদের নামাজ আদায় করেছি। আমরা রাসুলের সুন্নাহ অনুসরণ করে চলি। রাসুল (সা.) যেভাবে চলতে বলেছেন, আমরা সেইভাবে চলি।

হরিণাকুন্ডুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউর রহমান বলেন, ঈদের নামাজের জন্য মুসল্লিরা অনুমোদন নিয়েছে। আমরা ঈদ জামায়াতকে ঘিরে যেন আইনশৃঙ্খলা ব্যহত না হয় সেজন্য পুলিশ নিরাপত্তা দিয়েছে। কোনো ধরনের সমস্যা ছাড়াই ঈদের নামাজ শেষ করেছেন মুসল্লিরা।

ট্যাগস

সৌদির সঙ্গে মিল রেখে ঝিনাইদহে ঈদের নামাজ আদায়

আপডেট সময় ১০:৩৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪

সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছে কয়েকটি গ্রামের মুসল্লিরা। রোববার (১৬ জুন) সকালে উপজেলা শহরের ফুটবল মাঠ সংলগ্ন দুলদুল রাইস মিলে এ ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হয়।

আয়োজকেরা জানায়, সৌদি আরবের সঙ্গে মিলে রেখে তারা কয়েক বছর ধরে ঈদ জামাতের আয়োজন করে আসছেন। এবারও ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চোরকোল, শ্যামনগর, যাদবপুর, হরিণাকুন্ডু উপজেলার দখলপুর, নারায়নকান্দি, বৈঠাপাড়া, বোয়ালিয়া, চটকাবাড়ীয়া, পারফলসী, পায়রাডাঙ্গা এবং শৈলকুপা উপজেলার ভাটইসহ রাজশাহী জেলা শহর থেকে আগত মুসল্লিরা এ ঈদের নামাজ আদায় করেন।

ঈদ জামায়াতের ইমাম রেজাউল ইসলাম বলেন, সহি হাদিসের আলোকে ২২ বছর ধরে সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে হরিণাকুণ্ডুতে ঈদ নামাজ আদায় করে আসছি। এ জামাতে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেক আগত তিন শতাধিক মুসল্লি এক সঙ্গে নামাজ আদায় করতেন। এখন হরিণাকুণ্ডুর তিনটি স্থানে ঈদের জামাত হওয়ায় উপজেলা মোড়ে মুসল্লির সংখ্যা কমে গেছে।

ঈদ জামাত আয়োজক কমিটির সভাপতি আ ন ম বজলুর রহমান বলেন, ওআইসিসহ সকল মুসলিম উম্মা আজকে ঈদের নামাজ আদায় করছেন। সে কারণে আমরা ঈদের নামাজ আদায় করেছি। আমরা রাসুলের সুন্নাহ অনুসরণ করে চলি। রাসুল (সা.) যেভাবে চলতে বলেছেন, আমরা সেইভাবে চলি।

হরিণাকুন্ডুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউর রহমান বলেন, ঈদের নামাজের জন্য মুসল্লিরা অনুমোদন নিয়েছে। আমরা ঈদ জামায়াতকে ঘিরে যেন আইনশৃঙ্খলা ব্যহত না হয় সেজন্য পুলিশ নিরাপত্তা দিয়েছে। কোনো ধরনের সমস্যা ছাড়াই ঈদের নামাজ শেষ করেছেন মুসল্লিরা।