ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গাজায় যুদ্ধবিরতি চান ইসরাইলি জেনারেলরা

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪
  • 15

লেবাননের প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর সঙ্গে একটি সম্ভাব্য সর্বাত্মক যুদ্ধের আশঙ্কায় গাজা উপত্যকায় যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠার পরামর্শ দিয়েছেন ইসরাইলের শীর্ষ সামরিক কমান্ডাররা।

মার্কিন দৈনিক নিউ ইয়র্ক টাইমস বেশ কয়েকজন ইসরাইলি কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ইসরাইলি জেনারেলরা প্রয়োজনে আপাতত হামাসকে গাজার ক্ষমতায় রেখে হলেও যুদ্ধবিরতি চান।

তারা মনে করছেন, হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে বড় ধরনের যুদ্ধ শুরু হলে গাজায় নয় মাসের যুদ্ধের ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠে প্রস্তুতি নেয়ার জন্য তাদের সময় ও সুযোগের প্রয়োজন হবে। একসঙ্গে দু’টি ফ্রন্টে লড়াই করার অবস্থা ইসরাইলি সেনাবাহিনীর নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ইসরাইলি কর্মকর্তা মার্কিন দৈনিকটিকে বলেছেন, হামাসের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি হলে হিজবুল্লাহর সঙ্গেও যুদ্ধবিরতি চুক্তির সম্ভাবনা তৈরি হবে এবং সেক্ষেত্রে সর্বগ্রাসী যুদ্ধ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

হিজবুল্লাহ গত বছরের ৮ অক্টোবর থেকে বলে আসছে, ইসরাইলের উত্তর সীমান্তে তাদের হামলা কেবল তখনই বন্ধ হবে যখন তেল আবিব গাজা উপত্যকার বিরুদ্ধে গণহত্যা বন্ধ করবে।

ইসরাইলি জেনারেলরা মনে করছেন, গাজায় এখনও আটক ১২০ জনের মতো ইসরাইলি পণবন্দির মুক্তির সর্বোত্তম উপায় হামাসের সঙ্গে চুক্তি করা। কারণ, তারা নয় মাস যুদ্ধ করে গাজার প্রায় পুরো এলাকা দখল করেও পণবন্দিদের কোনো খোঁজ পাননি, এমনকি গাজায় হামাসের শীর্ষ নেতারা কোথায় আছেন তারও কোনো কূলকিনারা তারা করতে পারেননি।

তবে ইসরাইলি জেনারেলদের এই অভিমত মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন দেশটির যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তিনি তার ঘোষিত লক্ষ্য অর্থাৎ হামাসকে ধ্বংস না করে গাজা যুদ্ধ বন্ধ করতে রাজি নন। পার্সটুডে

ট্যাগস

গাজায় যুদ্ধবিরতি চান ইসরাইলি জেনারেলরা

আপডেট সময় ১১:৪৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

লেবাননের প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর সঙ্গে একটি সম্ভাব্য সর্বাত্মক যুদ্ধের আশঙ্কায় গাজা উপত্যকায় যুদ্ধবিরতি প্রতিষ্ঠার পরামর্শ দিয়েছেন ইসরাইলের শীর্ষ সামরিক কমান্ডাররা।

মার্কিন দৈনিক নিউ ইয়র্ক টাইমস বেশ কয়েকজন ইসরাইলি কর্মকর্তার উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, ইসরাইলি জেনারেলরা প্রয়োজনে আপাতত হামাসকে গাজার ক্ষমতায় রেখে হলেও যুদ্ধবিরতি চান।

তারা মনে করছেন, হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে বড় ধরনের যুদ্ধ শুরু হলে গাজায় নয় মাসের যুদ্ধের ক্ষয়ক্ষতি কাটিয়ে উঠে প্রস্তুতি নেয়ার জন্য তাদের সময় ও সুযোগের প্রয়োজন হবে। একসঙ্গে দু’টি ফ্রন্টে লড়াই করার অবস্থা ইসরাইলি সেনাবাহিনীর নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ইসরাইলি কর্মকর্তা মার্কিন দৈনিকটিকে বলেছেন, হামাসের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি হলে হিজবুল্লাহর সঙ্গেও যুদ্ধবিরতি চুক্তির সম্ভাবনা তৈরি হবে এবং সেক্ষেত্রে সর্বগ্রাসী যুদ্ধ থেকে রক্ষা পাওয়া যাবে।

হিজবুল্লাহ গত বছরের ৮ অক্টোবর থেকে বলে আসছে, ইসরাইলের উত্তর সীমান্তে তাদের হামলা কেবল তখনই বন্ধ হবে যখন তেল আবিব গাজা উপত্যকার বিরুদ্ধে গণহত্যা বন্ধ করবে।

ইসরাইলি জেনারেলরা মনে করছেন, গাজায় এখনও আটক ১২০ জনের মতো ইসরাইলি পণবন্দির মুক্তির সর্বোত্তম উপায় হামাসের সঙ্গে চুক্তি করা। কারণ, তারা নয় মাস যুদ্ধ করে গাজার প্রায় পুরো এলাকা দখল করেও পণবন্দিদের কোনো খোঁজ পাননি, এমনকি গাজায় হামাসের শীর্ষ নেতারা কোথায় আছেন তারও কোনো কূলকিনারা তারা করতে পারেননি।

তবে ইসরাইলি জেনারেলদের এই অভিমত মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন দেশটির যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তিনি তার ঘোষিত লক্ষ্য অর্থাৎ হামাসকে ধ্বংস না করে গাজা যুদ্ধ বন্ধ করতে রাজি নন। পার্সটুডে