ঢাকা , রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শেয়ারবাজারে ফের বিমার ঝলক

  • ডেস্ক :
  • আপডেট সময় ০৫:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুলাই ২০২৩
  • 157

দুদিন কিছুটা মূল্য সংশোধনের পর বুধবার (১৯ জুলাই) দেশের শেয়ারবাজারে আবার দাম বাড়ার ক্ষেত্রে দাপট দেখিয়েছে বিমা খাতের কোম্পানিগুলো। প্রায় সবকটি বিমা কোম্পানির শেয়ার দাম বাড়ায় প্রধান মূল্যসূচকও বেড়েছে। তবে, লেনদেনের গতি কিছুটা কমেছে।

দাম বাড়ার ক্ষেত্রে বিমা খাত দাপট দেখানোর দিনে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম বেড়েছে, কমেছে তার থেকে কম। এতে দুই বাজারেই প্রধান মূল্যসূচক বেড়েছে। তবে, ডিএসইতে কমেছে শরিয়াহ্ সূচক।

এদিন শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম বাড়ার মাধ্যমে। লেনদেনের শেষ পর্যন্ত বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের এ দাম বাড়ার প্রবণতা অব্যাহত থাকে। অন্যান্য খাতগুলোর তুলনায় দাম বাড়ার ক্ষেত্রে বেশি দাপট দেখিয়েছে বিমাখাত।

দিনের লেনদেন শেষে বিমা খাতের ৪৭টি প্রতিষ্ঠান দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে মাত্র একটির। আর সব খাত মিলে ডিএসইতে ১১৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৬৫টির। আর ১৮৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

ফলে, ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ১৫ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৩৬৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৪১ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৩৮৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর বাছাই করা ভালো ৩০টি কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ২০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

মূল্যসূচক মিশ্র থাকার দিনে ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ কমেছে। দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৮৭৭ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় এক হাজার ৪৪ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। সে হিসেবে লেনদেন কমেছে ১৬৭ কোটি ২১ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ফু-ওয়াং ফুডের শেয়ার। কোম্পানিটির ৪৮ কোটি ২৮ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা খান সি পার্ল বিচ রিসোর্টের ৩৭ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৩৬ কোটি ৭৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে আরডি ফুড।

এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- খান ব্রাদার পিপি ওভেন ব্যাগ, মিডল্যান্ড ব্যাংক, ইয়াকিন পলিমার, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড, অ্যাডভেন্ট ফার্মা এবং রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স।

অপর শেয়ারবাজার সিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ১৩ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন অংশ নেওয়া ২১৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮১টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৫৩টির এবং ৮৪টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লেনদেন হয়েছে ১০ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ১৫ কোটি ৪৩ লাখ টাকা।

ট্যাগস

শেয়ারবাজারে ফের বিমার ঝলক

আপডেট সময় ০৫:২৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৯ জুলাই ২০২৩

দুদিন কিছুটা মূল্য সংশোধনের পর বুধবার (১৯ জুলাই) দেশের শেয়ারবাজারে আবার দাম বাড়ার ক্ষেত্রে দাপট দেখিয়েছে বিমা খাতের কোম্পানিগুলো। প্রায় সবকটি বিমা কোম্পানির শেয়ার দাম বাড়ায় প্রধান মূল্যসূচকও বেড়েছে। তবে, লেনদেনের গতি কিছুটা কমেছে।

দাম বাড়ার ক্ষেত্রে বিমা খাত দাপট দেখানোর দিনে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম বেড়েছে, কমেছে তার থেকে কম। এতে দুই বাজারেই প্রধান মূল্যসূচক বেড়েছে। তবে, ডিএসইতে কমেছে শরিয়াহ্ সূচক।

এদিন শেয়ারবাজারে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দাম বাড়ার মাধ্যমে। লেনদেনের শেষ পর্যন্ত বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের এ দাম বাড়ার প্রবণতা অব্যাহত থাকে। অন্যান্য খাতগুলোর তুলনায় দাম বাড়ার ক্ষেত্রে বেশি দাপট দেখিয়েছে বিমাখাত।

দিনের লেনদেন শেষে বিমা খাতের ৪৭টি প্রতিষ্ঠান দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে মাত্র একটির। আর সব খাত মিলে ডিএসইতে ১১৬টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৬৫টির। আর ১৮৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

ফলে, ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ১৫ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৩৬৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ আগের দিনের তুলনায় দশমিক ৪১ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৩৮৭ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর বাছাই করা ভালো ৩০টি কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক আগের দিনের তুলনায় ২ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ২০০ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

মূল্যসূচক মিশ্র থাকার দিনে ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ কমেছে। দিনভর বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৮৭৭ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় এক হাজার ৪৪ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। সে হিসেবে লেনদেন কমেছে ১৬৭ কোটি ২১ লাখ টাকা।

টাকার অঙ্কে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে ফু-ওয়াং ফুডের শেয়ার। কোম্পানিটির ৪৮ কোটি ২৮ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছ। দ্বিতীয় স্থানে থাকা খান সি পার্ল বিচ রিসোর্টের ৩৭ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৩৬ কোটি ৭৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে আরডি ফুড।

এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- খান ব্রাদার পিপি ওভেন ব্যাগ, মিডল্যান্ড ব্যাংক, ইয়াকিন পলিমার, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড, অ্যাডভেন্ট ফার্মা এবং রূপালী লাইফ ইন্স্যুরেন্স।

অপর শেয়ারবাজার সিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ১৩ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন অংশ নেওয়া ২১৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৮১টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৫৩টির এবং ৮৪টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। লেনদেন হয়েছে ১০ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ১৫ কোটি ৪৩ লাখ টাকা।